আজ ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার,৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সালথায় পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রশাসনের বাজার মনিটরিং

Share

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সালথা উপজেলা প্রশাসন ও জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বাজার মনিটরিং করা হয়েছে। সেই সাথে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল করার অভিযোগে এক ব্যাক্তিকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়েছে।

আজ ১৭ সেপ্টেম্বর বুহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত উপজেলার জয়কালী বাজার ও সালথা বাজার মনিটরিং করা হয়।

ভ্রাম্যমান আদালত সুত্রে জানা যায়, বাজারে পেঁয়াজের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকার পরও কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির মাধ্যমে অধিক মুনাফা করার অভিপ্রায়ে পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মূল্য রাখা হচ্ছে। এছাড়া ব্যবসায়ীরা স্থানীয় বাজার থেকে বিনা রশিদে পেঁয়াজ ক্রয় করে ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য স্থানে অধিক চড়া মূল্যে বিক্রি করে ক্রেতা সাধারণকে ঠকিয়ে লাভবান হচ্ছে।

বাজার পরিদর্শনকালে সালথা বাজারে মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করে এবং বিনা রশিদে ব্যবসায়ীদের কাছে পেঁয়াজ বিক্রি করায় ১জন আড়তদারকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে “ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯” মতে ৫০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সকল আড়তদারকে চালান রশিদের মাধ্যমে কেনাবেচা করা এবং দোকানে মূল্য তালিকা টাঙ্গানোর জন্য সতর্ক করা হয়েছে। পাশাপাশি ক্রেতা সাধারণকে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পেঁয়াজ না কেনার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন, সালথা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হাসিব সরকার। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, ফরিদপুর জেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক (এস.এফ.আই) মোঃ বজলুর রশীদ খান, জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ সোহেল শেখ, সালথা উপজেলা কৃষি অফিসার জীবাংশু দাস, সালথা বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ফারুকুজ্জামান ফকির মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার হোসেন বাচ্চু মিয়া প্রমূখ।

এ সময় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ফরিদপুরের সহকারী পরিচালক মোঃ সোহেল শেখ জানান, কয়েক দিন ধরে বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ২০ টাকা বেড়েছে। সালথা বাজারে পেঁয়াজের আড়তে সরেজমিনে প্রমাণ মেলে আড়তদাররা পণ্য বিক্রির ব্যবসায়িক কাগজপত্র নিজেদের কাছে না রেখে আমদানিকারকের ফোনকলে দাম নির্ধারণ করে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। এতে কেজিপ্রতি প্রায় ২০ টাকা অতিরিক্ত মুনাফা করছেন। আর আড়ত অনুযায়ী পেঁয়াজের দামেও ভিন্নতা দেখা যায়। তিনি আরো জানান, ক্রয় ইনভয়েস বা রশিদ না রেখে নিজেদের মতো মূল্য বৃদ্ধি করায় জয়কালী বাজারে আফছান বানিজ্যলায়কে ৫হাজার এবং রনি ট্রেডার্সকে ৫হাজার মোট দুইটি আড়তদারকে ১০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ হাসিব সরকারের নেতৃত্বে সালথা বাজারে বাবুল ট্রেডার্সকে ৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সালথা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মাদ হাসিব সরকার বলেন, পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল হাট বাজারে আমাদের মনিটরিং অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

     More News Of This Category